মেনু নির্বাচন করুন

দর্শনীয় স্থান

অনুসন্ধান করুন

# শিরোনাম স্থান কিভাবে যাওয়া যায় যোগাযোগ
কল্যাণ সাগর দিঘীঃ

কসবা উপজেলা সদরে ডাকবাংলো সংলগ্ন প্রায় ২২ একর আয়তনে কল্যাণ সাগর দিঘী।

কসবা উপজেলা সদরে ডাকবাংলো সংলগ্ন।

0

কোল্লাপাথর শহীদ সমাধিস্থলঃ
সীমান্ত বাজার
কিভাবে যাবেনঃ
 রুট অাছে অনেকগুলা
১. ঢাকা টু কসবা রেল স্টেশন।এরপর পায়ে হেঁটেই বর্ডার হাট। এই রুটে অাসলে মনে হয় না টিকেট কাটতে পারবেন।কসবা স্টেশনে উপকূল,চট্টলা,উদয়ন,পাহাড়িকা ট্রেন থামে। অার ঢাকা চট্টগ্রামের সব লোকার ট্রেইন থামে।
২.ঢাকা টু অাখাউরা জংশন। এখানে ঢাকা - চট্টগ্রামের সব ট্রেন থামে সোনার বাংলা বাদে। ভাড়া ৬০ থেকে ১২০ টাকা। ঐখান থেকে সিএনজি রিজার্ভ করে কসবা বর্ডার হাট।
৩. ঢাকা - ব্রাহ্মনবাড়িয়া -কুটি,চৌমুহনী - কসবা - বর্ডার হাট। ঢাকা টু ব্রাহ্মনবাড়িয়া ট্রেন ভাড়া ৬০ থেকে ১০০ টাকা। তারপর ব্রাহ্মনবাড়িয়া টু কুটি ৪০ টাকা। কুটি টু কসবা ১৫ টাকা সি এনজি ভাড়া। ঐখান থেকে হেঁটেই বর্ডার হাট যাওয়া যায়।
৪.ঢাকা - কুমিল্লা- কসবা বর্ডার হাট। ঢাকা কুমিল্লার তিশা, এশিয়াতে উঠতে হবে নামাই দিবে শাসনগাছা সেখান থেকে ট্রেনে কসবা। ঢাকা টু কুমিল্লা ২০০। কুমিল্লা টু কসবা ট্রেন ১৫ থেকে ৩০ টাকা। সকাল ৯ টার অাগে কুমিল্লা পৌছাইতে পারলে ভালো। গিয়ে টিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন।
 
এছাড়াও বাসে যাওয়া যায়। ঢাকা সায়েদাবাদ থেকে বিঅারটিসিতে কুটি,চৌমুহনী। সেখান থেকে সিএনজিতে বর্ডার হাট। অথবা ঢাকা - কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট - কুটি - কসবা - বর্ডার হাট রুটে যাওয়া যায়।
 
যে কোন রবিবারে সময় করে ঘুরে আসতে পারেন কসবা বর্ডার হাট।
আরও সহজে

টঙ্গী স্টেশন ট্রেনে ব্রাক্ষনবাড়িয়া (৫৫টাকা)
ব্রাক্ষনবাড়িয়া স্টেশন থেকে কাউতলী বাসস্টেন (অটোতে ২০টাকা)
কাউতলী থেকে কুটি (বাসে ৪০টাকা)
কুটি থেকে কসবা বাজার (সি এন জি ২০ টাকা)
কসবা বাজারের কাছে উপজেলা ভবন থেকে টিকেট (৩০টাকা)
সেইখান থেকে রিক্সায় কসবা বর্ডার( ২০ টাকা)
(৫৫+২০+৪০+২০+৩০+২০=১৮৫টাকা)
খাবার আপনার নিজের উপরে। সকাল ৮ থেকে বিকাল ৫টা পযন্ত খোলা থাকে।
আর আসতে চাইলে যেভাবে যাবেন সেইভাবে আসতে পারেন কিন্তু ট্রেন মনে হয় নাও পেতে পারেন। সেইক্ষেত্রে ব্রাক্ষনবাড়িয়া থেকে বাসে আসতে হবে।